ডুয়েটে ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ কর্মশালা

মোঃ সাফায়েত হোসেন (কুমিল্লা)নাঙ্গলকোট প্রতিনিধিঃ বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে চলছে উদ্ভাবক ও উদ্ভাবনী ভাবনা খোঁজার প্রতিযোগিতা ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চ্যাপ্টার ওয়ান’। এর অংশ হিসেবে ঢাকা ইউনির্ভাসিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজিতে চলছে ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ রাউন্ড। দু’দিনের কর্মসূচির প্রথম দিন, বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয় বিশেষ কর্মশালা। এতে ইয়াং বাংলা, আইসিটি বিভাগের আইডিয়া প্রকল্পের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। কর্মশালায় প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে আগ্রহী শিক্ষার্থীদের ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরা হয়।শুক্রবার (৫ এপ্রিল) পিচিং রাউন্ডের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ডুয়েট পর্ব। সেখানে বাছাই করা হবে তিনটি উদ্ভাবক দল।

যারা সাভারে অনুষ্ঠেয় জাতীয় ক্যাম্পে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চূড়ান্ত হওয়া দলগুলোর সঙ্গে অংশ নেবেন দেশসেরা হবার লড়াইয়ে।দেশগঠনে তরুণদের উদ্ভাবনী ভাবনা, উদ্যোগ ও ‘স্টার্টআপ’ ব্যবহার করার লক্ষ্যে ‘আমার উদ্ভাবন, আমার স্বপ্ন’ স্লোগানে ৮ মার্চ কেন্দ্রীয় সমন্বয় কর্মশালার মাধ্যমে শুরু হয় হয় ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআাপ: চ্যাপ্টার ওয়ান’। দেশের ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে পরিচালিত হচ্ছে এ প্রতিযোগিতা।ক্যাম্পাস পর্যায়ের এ প্রতিযোগিতায় প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাছাই করা হবে ৩টি দল। ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২০ দল নিয়ে সাভারে অনুষ্ঠিত হবে ‘জাতীয় স্টার্টআপ ক্যাম্প’।

পরবর্তীতে দর্শক এবং বিচারকদের ভোটে বাছাই করা হবে মূল প্রতিযোগিতার শীর্ষ ৩০ স্টার্টআপ। সর্বশেষে জাতীয় পর্যায়ে সেরা ১০ উদ্ভাবনী ভাবনা বা স্টার্টআপ নির্বাচন করা হবে যাদের সব ধরনের সহায়তা প্রদান করবে ‘আইডিয়া’ প্রজেক্ট। সহায়তা দ্বার খুলে দেবে তারুণ্যের প্লাটফর্ম ইয়াংবাংলাও।ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আইসিটি বিভাগের ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্টারপ্রেনারশিপ একাডেমি (আইডিয়া) প্রজেক্ট এবং দেশের তরুণদের জন্য সবচেয়ে বড় প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলার যৌথ উদ্যোগে শুরু হওয়া এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার প্রথম অধ্যায় ৪০ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হলেও পরবর্তী অধ্যায়ে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়েও এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে।