ভোলা-বরিশাল ব্রীজ, পর্যটন শিল্পের নতুন অধ্যায়

images

মো. সাইফুল ইসলাম(ভোলা প্রতিনিধি): অনেক আশা আর আকাঙ্ক্ষার পর ভোলায় নির্মিত হবে ভোলা বরিশাল ব্রিজ।যা বিভাগীয় অঞ্চলের সাথে ও ঢাকার সাথে দ্রুত যোগাযোগের উন্নত মাধ্যম হবে।এর পাশাপাশি এটি পর্যটনদের দৃষ্টি আকর্ষণ  করা ব্রীজ গুলোর মধ্যে অন্যতম হবে এই ব্রীজটি।তবে ভোলা-বরিশাল সেতুর দৃশ্যমান নির্মাণকাজ শুরু হচ্ছে ডিসেম্বরে।

এ সরকারের আমলেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কাজের উদ্বোধন করবেন।গত শনিবার বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের উপস্থিতিতে সেতু মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আনোয়ারুল ইসলামসহ ১২ জনের একটি বিশেষজ্ঞ টিম সেতু নির্মাণের স্থান চূড়ান্ত করেছে। ডিসেম্বরে সেতু নির্মাণের বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাণিজ্যমন্ত্রী। এর আগে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলার বিভিন্ন দফতরের প্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় সেতু সচিব এ ব্রিজ নির্মাণের বিভিন্ন দিক ডিসপ্লে করেন।

এদিকে শনিবার ভোলায় আসা সেতু বিভাগের সচিব জানান, ভোলা-বরিশালের মধ্যে সেতু নির্মাণের জন্য বিদেশি দুটি কোম্পানি স্টুপ ও ক্রোয়াই ও দেশীটি কোম্পানি দেব কনসালট্যান্ট ও ডিডিসি লিমিটেড যৌথ সমীক্ষার কাজ করে। ওই টিমের প্রধান নির্মলা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে ১৫ জনের টিম গত ছয় মাস কাজ করে সমীক্ষা রিপোর্ট জমা দেয়। তিনটি সম্ভাব্য স্থানের মধ্যে সর্বাধিক উপযোগী ভোলার ভেদুরিয়া ও বরিশালের লাহারহাটকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর জন্য এপ্রোজ সড়ক ও চারটি ছোট ব্রিজসহ সম্ভাব্য ব্যয়ও ধরা হয়েছে প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকা। ইতিমধ্যে চীনের সঙ্গে এ সেতু নির্মাণের বিষয়টি চূড়ান্ত হয়েছে। কোন কোম্পানি ঠিকাদারি কাজ করবে তা ইআরডি সিদ্ধান্ত নেবে বলেও জানান সেতু সচিব।

ব্রীজটি নির্মিত হলে একদিকে যেমন যোগাযোগ ব্যবাস্থা উন্নতি হবে তেমনিভাবে একটি পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে যায়গা দখল করবে।