শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা রিসোর্ট

basher-kella-resort

ইমাম হোসেন শাকিল (ফেনী, ছাগলনাইয়া প্রতিনিধি): ফেনী জেলার ট্রাংক রোড থেকে ৭ কিলোমিটার আগে ছাগলনাইয়া উপজেলার চম্পকনগর গ্রামে শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা রিসোর্টটির অবস্থান। নির্মান শৈলী ও বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম এই রিসোর্ট এখন ভ্রমন পিয়াসীদের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এটির ভেতরের এবং বাইরের সবকিছুর নির্মাণশেলীতে রয়েছে বাশেঁর ব্যবহার। এছাড়াও প্রায়ই এখানে সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানের আকর্ষণ হিসেবে থাকছে, পাশ্ববর্তী ত্রিপুরা রাজ্য থেকে আগত পাহাড়ীদের নৃত্য পরিবেশনা।

 

basher-kella-resort

গ্রাম-বাংলার লোক সংস্কৃতির আরো অনেক উপকরণের সমন্বয়ে প্রায় ৫ একরের ওপর পুরো পর্যটনকেন্দ্রটি নির্মাণ করে এটি এক ধরনের চমকপ্রদ করে তোলার চেষ্টা করেছেন উদ্যোক্তা। বাঁশের রিসোর্টের বাইরে সুউচ্চ বাঁশের সারি। দেয়ালগুলোতে শুধুই বাঁশের দেয়ালি শিল্পকর্ম এবং প্রতিটি আসবাবপত্র বাঁশ দিয়ে তৈরি করা। রিসোর্টের বাইরেও রয়েছে নানান শৈল্পিক আয়োজন, বাইরের বাগানের পাশের খোলা আঙিনার ধারে বাঁশের মাচা করে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার ঐতিহ্যবাহী পাহাড়ি ঘর। সেখানে যে কোনো সাহিত্য আড্ডা কিংবা মুক্ত অনুষ্ঠান আয়োজন করা যেতে পারে। পাহাড়ি ঘরটি মনোরম মঞ্চ সদৃশ। পাশে ছোট ছোট ফল গাছের বাগানের মাঝে মাঝে রয়েছে বসার ছোট ছোট বেঞ্চ, অপর পাশে লেকের পানিতে ঘুরে বেড়ানোর জন্য রয়েছে হাতে ঘোরানো বৈঠা দেয়া আসন পাতা সুদৃশ্য নৌকা। কেল্লার প্রবেশপথে সবার চোখে পড়বে ‘ঐকতান’ নামের একটি ঢোলক, তবলা, হারমোনিয়াম ও একতারা সংবলিত ভাস্কর্য।

বাঙালি গ্রামীণ জনপদ ও উপজাতীয়দের আদলে রয়েছে একটি টুকিটাকি কেনাকাটা ও চা কফির স্টল। এখানে আছে বনভোজন আয়োজন করার ব্যবস্থা, আছে বারবিকিউ করা সুবিধাও। সাথে আছে বাঁশ দিয়ে তৈরি করা খাবার।

 

কিভাবে যাবেন:

ফেনী শহর থেকে বাসে ছাগলনাইয়া যেয়ে রিক্সা বা লেগুনাতে সরাসরি শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা রিসোর্ট (Shamser Gazir Bansher Kella Resort)।

basher-kella-resort

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এসে বারইয়ারহাট নামতে হবে। এরপর রামগড় রোড দিয়ে করেরহাট বাজার পেরিয়ে শুভপুর বাজারে গেলেই সোজা পূর্বদিকে একটি সরু সড়ক বেয়ে প্রায় ৩ কিলোমিটার সড়ক পার হলেই দেখা মিলবে এই বাঁশের কেল্লার। বারইয়ারহাট থেকে সিএনজি অটোরিকশাযোগে ভাড়া পড়বে ৪০-৫০ টাকা। আবার ফেনী শহর থেকে ছাগলনাইয়া হয়েও শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা রিসোর্ট এ যাওয়া যায়।