ঘুরে আসুন পান্তুমাই ঝরনা

মোঃ রাফায়েত উল্লাহ্‌ (মিরপুর,প্রতিনিধি): পান্তুমাই ঝরনার এখনও অখ্যাত, খুব বেশী পর্যটক এটির রুপ এখনও অবলোকন করেন নি। পাংথুমাই দেখতে যাওয়া এক ধরনের অভিযানও বটে, এডভেঞ্জার প্রেমীদের জন্য পান্তমাই হতে পারে ভ্রমনের জন্য প্রিয় যায়গা পান্তমাই এর  রূপ দেখতে হলে আপনাকে গোয়াইনঘাটের হাদারপাড় হয়ে নৌকায় যেতে হবে। পাহাড়ের মেয়ে পিয়াইন নদীর আসল সৌন্দর্য দেখা যাবে এই ভ্রমণে। পান্তমাই টা আসলে কোথায় প্রশ্ন জাগলো? সবুর করুন বলছি গোয়াইনঘাট উপজেলার পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের একটি গ্রাম পান্তুমাই। এর পাশ দিয়েই বয়ে চলেছে আঁকাবাঁকা পিয়াইন নদী।

শীতে পাহাড়ি এ নদী শুকিয়ে গেলেও বর্ষায় জলে টইটম্বুর থাকে পিয়াইনের এই জলধারার উৎপত্তি ভারতের মেঘালয় রাজ্যের সুউচ্চ পাহাড়গুলোর ঝরনা থেকেই। আমাদের দেশে এর নাম পান্তুমাই হলেও, ভারতীয় নাম ফটাছড়া বড়হিল। ভারতের মেঘালয় রাজ্যের ইস্ট খাসিয়া হিল জেলার পাইনেচুলা থানায় পাহাড়ি এ ঝরনার অবস্থান। শীতে এ ঝরনায় পানি থাকেনা বললেই চলে। বর্ষা এবং বর্ষা পরবর্তী দুই মাস ঝরনায় প্রাণ ফিরে পায়। পান্তুমাই গ্রাম থেকে পাহাড়ি এ ঝরণা মায়াবি রূপ দেখে যে কোনো পর্যটকেরই মন খারাপ হতে পারে। এত কাছে এসেও তাকে আরও কাছে থেকে না দেখতে পারার আফসোস নিয়েই তাই ফিরতে হবে সবাইকে। তবে পিয়াইনের স্বচ্ছ পানিতে অপরূপ এ ঝরনার প্রতিবিম্ব ছুঁয়েই সে আফসোসের কিছুটা হলেও দূর করা সম্ভব।

কীভাবে যাবেন: পান্তুমাই যেতে হলে প্রথমে যেতে হবে সিলেট শহরে। সড়ক, রেল ও আকাশ পথে ঢাকা থেকে সরাসরি সিলেট যাওয়া যায়। চট্টগ্রাম থেকেও সিলেটে পৌঁছান যায়। সিলেট শহর থেকে পান্তুমাই যেতে প্রথমে যেতে হবে হাদারপাড়। তবে হাদারপাড়ে যাওয়ার সহজ পথ হল শহর থেকে মালনিছড়ার পথে ওসমানী বিমান বন্দরের পেছনের ভোলাগঞ্জের সড়ক। হাদারপাড় থেকে পান্তমাই আসা যাওয়ায় অটো ভাড়া পড়বে ১৫০০-২০০ টাকা এখানে একটূ সাবধানে থাকবেন বাংলাদেশ ভারতের সীমান্ত ঘেষা, কোন ভাবেই সীমান্ত অতিক্রম করা যাবে না আবার খড় স্রোতা নদী তো আছেই।