ঘুরে আসুন সাদুল্লাপুর গোলাপ গ্রাম

মাহামুদুল হাসান ( মিরপুর প্রতিবেদক ) : শহুরে জীবনের যান্ত্রিকতা ও মানসিক অবসাদ দূর করার জন্য আমরা অনেক জায়গাতেই ঘুরতে যাই। তবে সময় ও অর্থের কারনে চাইলেও সবসময় দূরে কোথাও যেতে পারিনা। তাই অল্প সময়ের মধ্যে কাছে কোথাও ঘুরে আসতে পারবেন এমন অনেক জায়গাই আছে ঢাকার আশে পাশে। তার মধ্যে অন্যতম সুন্দর ও মন ভালো করে দেওয়ার মত জায়গা হলো গোলাপ গ্রাম যা ঢাকার অদূরে সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়ানে অবস্থিত।

ইহা ঢাকার খুব কাছেই সাভারের তুরাগ নদীর তীরঘেষে গড়েওঠা সাদুল্লাপুর গ্রামে অবস্থিত। এই গ্রামই মূলত সকলের কাছে গোলাপ গ্রাম নামে পরিচিত। এই গ্রাম তার সুন্দর্য দিয়ে আপনার সকল ক্লান্তি ও অবসাদ দূরকরে দিতে সক্ষম।পুরো গ্রামটাই যেনো একটা গোলাপের বাগান, উঁচু জমিগুলো ছেয়ে আছে বিভিন্ন জাতের গোলাপে।

এখানে লাল, হলুদ ও সাদা রংয়ের গোলাপ ছাড়াও রয়েছে অন্যান রংয়ের ফুল। তবে লাল গোলাপের আধিক্যই এখানে বেশি। মূলতে এই গ্রামে বানিজ্যিক ভাবে গোলাপ চাষ করা হয়। কমবেশি এই গ্রামের প্রতিটি পরিবারই গোলাপ চাষের সাথে জড়িত। এ গ্রামের ভিতরে যতদূর যাবেন গোলাপ ডাকা চারপাশ আপনাকে মুগ্ধ করে রাখবে। ভোরের শিশিরে ভেজে গোলাপের পাপড়িগুলো ঝিকিমিকিয়ে উঠে। গ্রামের বুকে বেয়ে চলেছে আঁকাবাঁকা সরু পথ তার দু’পাশে বিস্তীর্ণ গোলাপের বাগান।

ফুটে আছে অসংখ্য টকটকে লাল গোলাপ। চাষিরা ফুল কাটায় ব্যস্ত । গ্রামজুড়ে ছরিয়ে পরেছে গোলাপের সৌরভ। এখানে যে কোনো বাগান থকে আপনি চাইলে ফুল কিনতে পারেন। ৫০টি গোলাপের একটি আটি দাম নিবে মাএ ১৫০-২০০ টাকা। মূলত ঢাকার বেশির ভাগ গোলাপের চাহিদা মেটায় এই গ্রামের গোলাপ। তাই চাষিরা সারা বছরই ব্যস্ত থাকে। বিষেশ উৎসবের দিনগুলোতে চাহিদা বেড়ে যায় বহুগুন।

কিভাবে যাবেন  :

মূলত সড়ক ও নৌ দু’ভাবেই সাদুল্লাপুর যাওয়া যায়। ঢাকার মিরপুর মাজার রোড থেকে ছোট বাস ও লেগুনায় করে আকরাইন হয়ে সাদুল্লাপুর যাওয়া যায়। এছাড়াও নৌ পথে মিরপুর বেরিবাধের দিয়া বাড়ি ট্রলার ঘাট থেকে সরাসরি ট্রলারযোগে গোলাপ গ্রাম যাওয়া যায়।

ভ্রমন টিপস্ : কোথাও ঘুরতেগিয়ে পরিবেশের ক্ষতি সাধন হয় এমন কাজ থেকে বিরত থাকবেন এবং ময়লা আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলবেন।