রংপুরের শাহ ইসমাইল গাজীর দরগাহ

7 (1)

নূরুন্নবী বাদশা: (রংপুর প্রতিনিধি) শাহ ইসমাইল গাজীর দরগাহ বাংলাদেশের রংপুর বিভাগে অবস্থিত একটি প্রাচীন দরগাহ । এটি মূলত রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার অন্তর্গত একটি প্রাচীন মাজার । এটি বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের তালিকাভুক্ত একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা । ধারণা করা হয় এটি মোঘল আমলের শেষের দিকে তৈরি করা হয়েছিল । এটি রংপুর জেলার পীরগঞ্জ থানার একটি বিখ্যাত স্থান ।

নামকরণ
শাহ ইসমাইল গাজী (রঃ) বাংলার একজন বিখ্যাত ইসলাম প্রচারক ছিলেন । ধারণা করা হয় বারাক শাহের আমলে তিনি বাংলার উত্তরাঞ্চলে বিভিন্ন অংশে মুসলিম রাজ্যের বিস্তারের জন্য ও ইসলাম প্রচারের কাজে নিয়োজিত ছিলেন । তাঁর নামেই এই দরগাহর নামকরণ করা হয়েছে ।

ইতিহাস
কথিত আছে যে, শাহ ইসমাইল গাজী ছিলেন রসুল (সঃ) এর বংশধর এবং তিনি মক্কায় জন্মগ্রহণ করেন । সেখানেই বড় হন ও শিক্ষাগ্রহণ করেন । ইসলাম প্রচারের জন্য তিনি ভারতে আসেন । বারবক শাহের আমলে (১৪৫৯-১৪৭৪ খ্রিঃ) তিনি একজন ভালো দরবেশ যোদ্ধা হিসাবে নিজেকে
প্রতিষ্ঠিত করেন ।মিথ্যা অভিযোগের কারণে রাগান্বিত হয়ে দরবেশের শিরশ্ছেদের আদেশ দেন ।
কথাটি সত্য নয় । লোককাহিনী অনুসারে শিরশ্ছেদের পর শাহ ইসমাইলের মাথা রংপুরের কান্তদুয়ারে এবং দেহ হুগলি জেলার মান্দারণে কবর দেয়া হয় ।তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই এই দরগাহ করা হয়।

বিবরণ
শাহ ইসমাইল গাজীর দরগাহ প্রায় পাঁচ মিটার উঁচু ঢিবিটি প্রাচীন ইট ও পাথরে পূর্ণ । এর উপরি ভাগে প্রায় ৭ মটার দৈর্ঘ্য ও ৫ মিটার প্রস্থ আয়তনের সমতল স্থানের পশ্চিম ভাগে একটি ছাদহীন ক্ষুদ্র ও জীর্ণ ইমারত আছে । দক্ষিণের দেয়ালে একটি দরজা আছে ।

অবস্থান
প্রত্নতাত্ত্বিক মাজারটি বগুড়া-রংপুর মহাসড়কের পাশে অবস্থিত ।